1. admin@andolonerbazar.com : : admin admin
  2. andolonerbazar@gmail.com : AndolonerBazar :
শিরোনাম :
মেহেরপুর সদর ও মুজিবনগর উপজেলা নির্বাচনে চুড়ান্ত প্রার্থী প্রকাশ চ্যাপম্যান ঝড়ে সমতায় নিউজিল্যান্ড অবিচারের শিকার হয়েছে বার্সা: জাভি মোস্তাফিজ ভাইয়ের প্রতিটা বল দেখি: শরিফুল ইসরায়েলি সেনা ব্যাটালিয়নের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র যুক্ত হবেন ২০ লক্ষাধিক দরিদ্র মানুষ : আগামী বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচিতে ১ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের পরিকল্পনা থাইল্যান্ড যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী সই হবে ৫ চুক্তি-সমঝোতা আরো ৩ দিনের সতর্কবার্তা বাড়তে পারে তাপমাত্রা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য নিরাপদ ও সুন্দর পৃথিবী গড়ে তুলতে চাই: প্রধানমন্ত্রী কুমারখালীতে বৃষ্টির আশায় ইস্তিসকার নামাজ আদায়

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থতি নিয়ন্ত্রণ রাখতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ

  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ১২ জুন, ২০২৩

 

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থতি নিয়ন্ত্রণ রাখতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ। সন্ত্রাসের জনপদ খ্যাত এ জেলায় এখন সন্ত্রাসীরা আর মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারেনি। ছোট খাটো কিছু সন্ত্রাসী তাদের সন্ত্রাসী কমকান্ড চালাতে গেলেও তা কঠোরহস্তে দমন করা হয়েছে। সন্ত্রাসী, চাদাবাজি রুখতে সব সময় কাজ করে চলেছে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ। পুলিশের সেবা সাধারন মানুষের দোরগোড়ায় পৌছে দিতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে এ সংস্থাটি। যার ফলে বিগত প্রায় আড়াই বছরে এ জেলায় কোন নাশকতার ঘটনা ঘটেনি। জেলার সকল থানার পুলিশ অফিসাররা বিশেষ অভিযান চালিয়ে মাদকদ্রব্য, অস্ত্র, বিস্ফোরক, চোরাচালান, চোরাই গাড়ী, পশু উদ্ধারসহ  গ্রেপ্তারী পরোয়ানা তামিল করতে তৎপর ছিলো এবং আছে। তাছাড়া গেল উপজেলা নির্বাচন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, পৌরসভা নির্বাচন এবং  জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিচ্ছিন্ন কিছু ছোট খাটো ঘটনা ছাড়া বড় কোন প্রকার হানাহানির ঘটনা ঘটেনি। এসব নির্বাচনে কোন ভোট কেন্দ্রে নির্বাচন বন্ধ হওয়া তো দুরের কথা সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করাই ছিলো কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের অঙ্গিকার। গ্রেপ্তার ও উদ্ধারে যেমন  ছোটখাটো অর্জন আছে তেমনি বড় অর্জনও আছে তাদের পাল্লায়। অপরদিকে এ জেলায় কিছু খুনের ঘটনা ঘটলেও তা ছিলো জমি সংক্রান্ত বিরোধ, সামাজিক দ্বন্দ্ব, পুর্ব শত্র“তা ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে  কেন্দ্র করে। যা নিয়ন্ত্রনে পুলিশ ঐকান্তিকভাবে কাজ করেছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে সক্ষম হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামীদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে। কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কুষ্টিয়ায় গত ২০২১ সালের ২৫ ফেব্র“য়ারী থেকে চলতি বছর ২০২৩ সালের ২৭ মে মাস পর্যন্ত মাদকদ্রব্য উদ্ধারজনিত মামলা হয়েছে ১৬২৪টি। এ সংক্রান্ত  গ্রেপ্তার হয়েছে ২১১৩জন। উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যের মধ্যে হেরোইন ১২৭.৬ গ্রাম ও ১২৯ পুরিয়া, ফেন্সিডিল ৭৫১১ বোতল, গাজা ১৬৯৯  কেজি ৬১১গ্রাম, ইয়াবা ১১৩৮৭ পিচ, ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেট ৩০৬৭৪ পিচ, দেশি মদ ৯২ বোতল, বিদেশী মদ ৩ বোতল, বাংলা মদ ৩৮১ লিটার, ইন্ফুল ইনজেকশন ৮পিচ এবং তাড়ি ৪৩লিটার। অপরদিক অস্ত্র উদ্ধারজনিত মামলা হয়েছে ৫২টি। আর গ্রেপ্তার হয়েছে ৭৩জন। উদ্ধারকৃত অবৈধ অস্ত্রের মধ্যে পিস্তল ১৪টি, পাইপগান ১টি, কাটারাইফেল ১টি, শুটারগান ৮টি, থ্রী নাট থ্রী রাইফেল ১টি, আগ্নেয়াস্ত্র ১১টি, দেশীয় অস্ত্র ৮৭৪টি, গুলি ৮৭ রাউন্ড ও ম্যাগজিন ৮টি। অন্যদিকে বিস্ফোরক, চোরাচালান ও অন্যান্য উদ্ধারজনিত মামলার মধ্যে রয়েছে বিস্ফোরক ১৮টি মামলায় গ্রেপ্তার ৮৫জন এবং চোরাচালানের ৬টি মামলায় ১৭জন গ্রেপ্তার হয়েছে। উদ্ধারকৃত বিস্ফোরকের মধ্যে রয়েছে- ককটেল ৬৮টি, গ্রেনেড ১টি, বিয়ারিং ২৩ প্যাকেট, লোহার টুকরা ৪  কেজি ৩২০ গ্রাম, জর্দ্দার কৌটা ১৪টি, কসটেপ ৪৭টি, লোহার রড ৫টি, বাশের লাঠি ৮টি, কাঠের বাটাম ২টি। চোরাচালান মামলা উদ্ধারকৃত মালামালগুলো হলো- ভারতীয় রুপি ৬৫০, সৌদি রিয়াল ৪০০, নকল বিড়ি ১৭৬৯৩৩৫০শলাকা, সিগারেট ৩০৮০ প্যাকেট, নকল ব্যান্ডরোল ৫০০০পিচ, নিশা পাতার প্যাকেট বিড়ি ১০প্যাকেট, মোটরসাইকেল ২২টি, ইজিবাইক ৯টি, ট্রাক ২টি, সিএনজি ২টি, বাইসাইকেল ২টি, পাখি ভ্যান ৫টি, আলমসাধু ১টি। এছাড়া মামলায় জব্দকৃত মোবাইল ৯৪টি, রুপা ৩৯৪ভরি ৯আনা ৩ রতি, বাংলা টাকা ৩৭৪৩৬৮, সিটি গোল্ডের  চেইন ২৫০টি এবং জিডি মূলে ১১৩টি ক্যারাম বোর্ড উদ্ধার করা হয়। এসব মামলার ছাড়াও সাইবারক্রাইম ইউনিটের মাধ্যমে মোবাইল ৫০৫টি এবং প্রতারনার মাধ্যমে উদ্ধারকৃত টাকার পরিমান ছিল ৪১ লাখ ৫৮ হাজার ৫০০টাকা। এছাড়া চোরাই গাড়ী ও পশু উদ্ধারের মধ্যে রয়েছে ইজিবাইক ৩৬টি, পাখি ভ্যান ৫৫টি, সিএনজি ২২টি, আলম সাধু ৭টি,  মোটরসাইকেল ৩৮টি,  ট্রাক ৩টি, পিকআপ ১টি, রিক্সা ১টি, গরু ৪৭টি, ছাগল ২৭টি, হাঁস ২৫০টি। তাছাড়া গ্রেপ্তারি পারোয়ানা তামিল করতে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ সব সময়ই নিরলসভাবে কাজ করছে। গত প্রায় আড়াই বছরে তারা ১৬ হাজার ২৪৯টি ওয়ারেন্টপ্রাপ্ত হয়েছে। যার ১৫ হাজার ৮৯১টি ওয়ারেন্ট নিষ্পত্তি করেছে। এ ব্যাপারে কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার মোঃ খাইরুল আলম বলেন- কুষ্টিয়ার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি এখন পর্যন্ত স্বাভাবিক রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো রাখতে আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। সন্ত্রাস, মাদকদ্রব্য, নাশকতা, খুন ও চোরাচালান  রোধে জিরো টলারেন্সে আছি। এ অঞ্চলের মানুষের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ বদ্ধপরিকর রয়েছে। সমাজের বিভিন্ন  শ্রেনী পেশার মানুষের সাথে যোগাযোগ রেখে আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি ভালো রাখতে কাজ করে যাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, আমি কুষ্টিয়া জেলার দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে অত্র জেলায় কোন প্রকার নাশকতার ঘটনা ঘটে নাই। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। এ জেলায় অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, পৌরসভা নির্বাচন এবং  জেলা পরিষদের নির্বাচনে কোন প্রকার হানাহানির ঘটনা ঘটেনি। কোন  ভোট কেন্দ্রে নির্বাচন বন্ধ হয়নি। সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে  পেরেছি। এটাই আমার বড় সাফল্য। আশা করি কুষ্টিয়ায় যতদিন থাকবো, এলাকার আপামর জনসাধারণকে সাথে নিয়ে কাজ করব। এক্ষেত্রে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন এই পুলিশ  কর্মকর্তা।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো খবর
© All rights reserved ©2021  Daily Andoloner Bazar
Site Customized By NewsTech.Com