1. andolonerbazar@gmail.com : AndolonerBazar :
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:১১ অপরাহ্ন

আপনাদের হাত ধরেই প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ভিষন ২০৪১ বাস্তবায়ন হবে

  • সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ৩০ মার্চ, ২০২২
  • ৬৫ মোট ভিউ

 

 

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া জেলায় ইতিমধ্যে লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের আওতায় ৪০ টি ব্যাচের মাধ্যমে ৮০০ জন প্রশিক্ষনার্থীকে সফলভাবে প্রশিক্ষন প্রদান করা হয়েছে । যার মধ্যে ৩৬০ জন গ্রাফিক্স ডিজাইনে, ৩২০ জন ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে এবং ১২০ জন ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টে প্রশিক্ষন গ্রহন করেছেন । প্রশিক্ষন গ্রহণ শেষে অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা আউট সোর্সিংয়ের কাজ করে মাসে ২০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে লক্ষাধিক টাকা রোজগার করছেন। কুষ্টিয়া জেলার লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পে অংশ গ্রহণকারী প্রশিক্ষনার্থীরা প্রশিক্ষণ শেষে ৬১০ জন প্রশিক্ষনার্থী এখন পর্যন্ত  দুই কোটি ১৬ লক্ষের অধিক টাকা উপার্জন করেছেন বলে জানা যায় ।

গতকাল বুধবার ৩০শে মার্চ সকাল ৯টা কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের আয়োজনে লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের আওতায় পরিচালিত ব্যাচ ভিত্তিক সর্বোচ্চ উর্পাজনকারী ২৮ জন প্রশিক্ষনার্থীর মাঝে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল কম্পিউটর এবং সম্মাননা ক্রেস্ট বিতরন করেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক, শিক্ষা ও আইসিটি) মোছাঃ শারমিন আখতার এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম । এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ সিরাজুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট (ট্রেজারী ও স্ট্যাম্প শাখা ও নেজারত ডেপুটি কালেক্টর) মোঃ সবুজ হাসান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাধন কুমার বিশ^াস, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা নৃপেন্দ্র নাথ বিশ^াস  সহ প্রশিক্ষনার্থী এবং অভিভাবকেরা। লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের প্রশিক্ষনার্থী তৌফিক হাসান জানান, প্রশিক্ষন গ্রহণ কালীন সময় থেকে এখন পর্যন্ত আমি অলাইন থেকে ৩২ হাজার ডলারের মত ইনকাম করেছি । আমি এখন নিয়মিত কাজ করতেছি । সেই সাথে তিনি অনলাইন থেকে আয় করার বিষয়ে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা তুলে ধরেন । লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের মাধ্যমে সুযোগ করে দেওয়ার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন । অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ সিরাজুল ইসলাম বলেন, পড়াশুনার পাশাপাশি আমরা সবসময় এই ধরনের সুযোগ গুলো অনুসন্ধান করি । বিশেষ করে অনার্স বা মাষ্টার্স পড়াশুনা কালীন সময়ে পরিবারের কাছে টাকা চাইতে সংকোচ বোধ হয় । কিন্তু আমরা যদি নিজে উপার্জন করে চলতে পারি, সেটা আমাদের জন্য বড় একটা পাওয়া । প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বলেন, উন্নত বিশে^ পড়াশুনা চলাকালীন সময়ে ছাত্র ছাত্রীরা পার্ট টাইম জব করে নিজেদের খরচ নিজেরাই বহন করে । এইটা তাদের কাছে গৌরবের। লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে বাংলাদেশের অনেক প্রশিক্ষনার্থী যে শুধু নিজেই স্বাবলম্বী হয়েছে তা নয়, তারা এখন অন্যকেউ চাকুরী দেয় বা দিয়ে পারে। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনাদের হাত ধরেই প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ভিষন ২০৪১ (সুখি সমৃদ্ধ, ক্ষুধা মুক্ত সোনার বাংলা) বাস্তবায়ন হবে। বাংলাদেশ পৃথিবীর বুকে মাথা উচু করে দাঁড়াবে । সেই লক্ষে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে আপনারই মূখ্য ভূমিকা পালন করবেন ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর
© All rights reserved ©2021  Daily Andoloner Bazar
Theme Customized By Uttoron Host

You cannot copy content of this page