1. admin@andolonerbazar.com : : admin admin
  2. andolonerbazar@gmail.com : AndolonerBazar :
শিরোনাম :
জিম্বাবুয়ে সিরিজের শুরুতে থাকবেন না সাকিব দক্ষিণ আফ্রিকায় ম্যান্ডেলা কাপে জিনাতের স্বর্ণ জয় বাংলাদেশের স্পিন বিভাগে পার্থক্য তৈরি করতে চান মুশতাক মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনার মধ্যে ইরানের রাষ্ট্রপতির পাকিস্তান সফর দেশের ইতিহাসে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩৩ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রথম ধাপের উপজেলা ভোট : ৭ চেয়ারম্যান ও ৯ ভাইস চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আমিরের বৈঠক: কাতারের কাছে দীর্ঘমেয়াদি জ্বালানি সহায়তা চায় বাংলাদেশ ফের তাপমাত্রা বাড়ার আভাস দেশি-বিদেশি চক্র নির্বাচিত সরকারকে হটানোর চক্রান্ত করছে : কাদের প্রধানমন্ত্রী ও কাতার আমিরের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক, ১০ চুক্তি-সমঝোতা স্মারক সই

কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য থেকে ছাত্রলীগ নেতা সজিব

  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

 

নিজ সংবাদ ॥  পুলিশ মিলন অপহরন ও হত্যায় এস কে সজিবসহ ৫জনকে আটক করেছে। এর মধ্যে ৪ জনের পরিচয় মিলেছে। সজিব ছাড়া অন্যরা হলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের কান্তিনগর গ্রামের আমজাদ আলীর ছেলে জহির রায়হান বাবু (৩৪), সদরের কুমারগাড়া এলাকার রবিউল ইসলামের ছেলে ফয়সাল আহমেদ, হাউজিং এলাকার আওলাদ হোসেনের ছেলে ইফতি খান।

এসকে সজিব। স্কুলে ও কলেজে পা না পড়লেও ছাত্রলীগের পদ-পদবি পেয়ে যান সজিব। ইয়াসির আরাফাত তুষার ও সাদ আহাম্মেদের কমিটিতে ২০১৭-১৮ সালের দিকে প্রথম কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদকের পদ পায় সজিব। সে সময় থেকেই সে শহরের হাউজিং এলাকায় কিশোর গ্যাং গঠন করে নেতৃত্ব দিয়ে এলাকায় চাঁদাবাজি, মারপিট, মাদক কারবারসহ নানা অপকর্ম শুরু করে। নানা অপরাধ কর্মকান্ড করার পরও নেতাদের সুপারিশে জেলা ছাত্রলীগের সর্বশেষ কমিটিতে সহ-সভাপতির পদ পেয়ে যায় সজিব। এরপর সে আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠে। শহরে প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিতে দেখা যায়। তবে জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জের ওপর হামলাসহ নানা অপকর্মের কারনে তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়। এরপর সে আবার তুষারের হাত ধরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মি হিসেবে কাজ শুরু করে। সর্বশেষ সংসদ নির্বাচনের সময় একটি নির্বাচনী প্রচারনায় অংশ নেয় সজিব। সেখানে বক্তব্য দিতে দেখা যাচ্ছে তাকে। ওই মঞ্চে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইয়াসির আরাফাত তুষার ও সাধারন সম্পাদক মানব চাকীসহ অন্য নেতারাও ছিলেন। তাকে বলতে শোনা যায় আগে আমি ছাত্রলীগ করতাম, এখন স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতি করি। মিলন হত্যারকান্ডের গ্রেফতারের আগে শহরে তাকে দেখা গেছে। দলের একটি সূত্র জানায়, এস কে সজিবকে নেতারা ব্যবহার করে নানা অপকর্মে। তার ক্যাডার বাহিনী রয়েছে। মিছিল মিটিংয়ে কিশোরদের নিয়ে আসে সে। আগে ছাত্রলীগ করলেও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নতুন কমিটিতে ইয়াসির আরাফাত তুষার সভাপতি হওয়ার পর ফের তার ছত্রছায়ায় থেকে নানা অপকর্ম করে আসছিল। সর্বশেষ শুক্রবার রাতেও তুষারের সাথে কুষ্টিয়া পলিটেকনিকে এক সাথে ছিলো তারা। এরপরই তাকে আটক করে পুলিশ। এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইয়াসির আরাফাত তুষার বলেন, সে আমার সাথে রাজনীতি করে এটা ঠিক। শুক্রবারও পলিটেকনিকে আমরা গিয়েছিলাম, তারাও ছিল। তার ব্যাক্তিগত অপরাধের দায়তো সংগঠন নেবে না। বারবার অপরাধ সত্বেও তাকে কেন সংগঠনে নেওয়া হয় জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কোন কথা বলতে চান নি। পুলিশের দেওয়া তথ্য মতে, একে সজিবের নাম সজিব শেখ। তার পিতার নাম মিলন শেখ। শহরের আড়–য়াপাড়া এলাকার হরিবাসর এলাকায় তাদের বাড়ি। সজিবের নামে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মাদক, চাঁদাবাজি, হামলাসহ নানা অপরাধে এর আগে ৭টি মামলা আছে। একটি মামলায় তার দুুই বছরের সাজাও হয়। গত বছর শহরের পিটিআই রোডে জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জকে মারধর করে তাকে গুরুতর আহত করা হয়। এর আগে শহরের সাদ্দাম বাজার এলাকা এক যুবককে ধরে চাকু দিয়ে আঘাত করলে সেও গুরুতর আহত হয়। এছাড়া বিএনপি অফিস ও মিছিলেও তার নেতৃত্বে হামলার ঘটনা ঘটে একাধিক বার। এছাড়া শহরের হাউজিং এলাকায় চাঁদাবাজি ও হামলার একাধিক ঘটনা আছে। সেই সব ঘটনায় থানায় মামলা আছে। সর্বশেষ মিলন হোসেন অপহরন ও কিলিং মিশনে নেতৃত্ব দেয় সজিবসহ তার ৫ সহযোগী। পুলিশের ওই সূত্র জানায়, হাউজিং এলাকায় তাদের একটি অফিস আছে। সেই অফিসে লোকজনকে ধরে এনে টর্চার করা হয়। আটক রেখে চাঁদা আদায় করার মত ঘটনাও ঘটায় তারা। কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সোহেল রানা বলেন,‘ হত্যার ঘটনায় আটককৃতদের নামে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। আর দুপুরে মিলনের ময়না তদন্ত শেষ হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 

Please Share This Post in Your Social Media

আরো খবর
© All rights reserved ©2021  Daily Andoloner Bazar
Site Customized By NewsTech.Com