1. admin@andolonerbazar.com : : admin admin
  2. andolonerbazar@gmail.com : AndolonerBazar :
শিরোনাম :
জিম্বাবুয়ে সিরিজের শুরুতে থাকবেন না সাকিব দক্ষিণ আফ্রিকায় ম্যান্ডেলা কাপে জিনাতের স্বর্ণ জয় বাংলাদেশের স্পিন বিভাগে পার্থক্য তৈরি করতে চান মুশতাক মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনার মধ্যে ইরানের রাষ্ট্রপতির পাকিস্তান সফর দেশের ইতিহাসে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩৩ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রথম ধাপের উপজেলা ভোট : ৭ চেয়ারম্যান ও ৯ ভাইস চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আমিরের বৈঠক: কাতারের কাছে দীর্ঘমেয়াদি জ্বালানি সহায়তা চায় বাংলাদেশ ফের তাপমাত্রা বাড়ার আভাস দেশি-বিদেশি চক্র নির্বাচিত সরকারকে হটানোর চক্রান্ত করছে : কাদের প্রধানমন্ত্রী ও কাতার আমিরের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক, ১০ চুক্তি-সমঝোতা স্মারক সই

কুষ্টিয়ায় জেলা প্রশাসকের সাথে চাল কল মালিকদের সভায় পরস্পর বিরোধী বক্তব্য

  • সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ২১ জানুয়ারী, ২০২৪

নিজ সংবাদ ॥ চালের বাজারে অস্থিরতা ঠেকাতে দেশে মিনিকেট চালের (সরু চাল) প্রধান মোকাম কুষ্টিয়ার খাজানগরের চালকল মালিকদের সঙ্গে মতবিনিয় সভা করেছেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ এহেতেশাম রেজা। গতকাল রবিবার বিকেলে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।  এতে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সরকারি কর্মকর্তা এবং জেলার পাইকারি ও খুচরা চাল ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।সভায় মিল মালিকদের মধ্যে কেউ কেউ দাবি করেন, চালের দাম বৃদ্ধির ব্যাপারে তাদের কোন হাত নেই। বাজারে ধানের দাম চড়া হাওয়ায় চালের দাম বেড়ে গেছে। তবে গত দুই তিন দিন ধরে বাজার কমতে শুরু করেছে বলে তারা জানান। এ সময় মিল মালিকদের কেউ কেউ পরস্পর বিরোধী বক্তব্যও দেন। আনোয়ার হোসেন নামের এক মিল মালিক দাবি করেন, খাজানগর মোকামের কিছু বড় মিল মালিকের গুদামে ধানের মজুদ রয়েছে। কিন্তু তার মত ছোট ছোট মিল মালিকরা প্রায় প্রতিদিন ধান কিনে তা থেকে চাল তৈরি করেন। এক্ষেত্রে বড় মিল মালিকরা চালের দাম বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখতে পারেন বলে তার দাবি। তিনি বলেন- বাজারে ধানের কোন সংকট নেই। তাই হঠাৎ করে চালের মূল্য  কেজিতে ৪-৫ টাকা বৃদ্ধি পাওয়া কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।  সভায় উপস্থিত বাংলাদেশ অটো মেজর এন্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতির কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি আব্দুর রশিদ বলেন, কুষ্টিয়ার খাজানগর মোকামের কোন চাল কল মালিকরা চাল সিন্ডিকেটের সাথে জড়িত নেই। উত্তরবঙ্গ বিশেষ করে নওগাঁ এলাকার কিছু চালকল মালিক বাজারে অস্থিরতা সৃষ্টির জন্য দায়ী। তারা হঠাৎ করে চালের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।   কুষ্টিয়া জেলা চাল কল মালিক সমিতির একাংশের সভাপতি আব্দুস সামাদ বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে দেশে একটা অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি হতে পারে -এ আশঙ্কা থেকে পাইকাররা এখানকার মোকাম থেকে চাল কেনা বন্ধ  রেখেছিল। নির্বাচনের পর সব পাইকার একসাথে মোকাম থেকে চাল কেনা শুরু করায় চালের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে বলে তার দাবি।  কোন কোন ব্যবসায়ী ও মিল মালিক বলেন, ছোট ও মাঝারি কোন কৃষকের ঘরে ধান নেই। বেশির ভাগ ধান বড় কৃষক, ফড়িয়া ও ব্যবসায়ী  ও মিল মালিকদের গোডাউনে আছে। তাই সামনে বোরো মৌসুমের আগে ধানের বাজার বাড়াতে একটি চক্র কৃত্রিম সংকট তৈরি করছে। তাদের চিহিৃত করতে হবে।  পরে জেলা প্রশাসক এহেতেশাম রেজা কুষ্টিয়ার মোকামে চালের মূল্য নির্ধারণের জন্য সবার মতামত চাইলে কুষ্টিয়া  জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ বাবুল হোসেন বলেন, হঠাৎ করে দাম বৃদ্ধির আগে খাজানগর মোকামে মিলগেটে মিনিটের চালের দাম ছিল ৬০ টাকা কেজি। তিনি সেই দাম বলবৎ রাখার জন্য প্রস্তাব করেন। এতে চালকল মালিকরা প্রতিবাদ জানান। পরে জেলা প্রশাসক মিলগেটে প্রতি কেজি মিনিকেটের দাম ৬১ টাকা এবং খুচরা বাজারে ৬৩ টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব দেন। এতেও রাজি হননি চাল কল মালিকরা। তারা জানান ৬২ টাকার নিচের তারা মিনিকেট চাল সরবরাহ করতে পারবেন না। এমন পরিস্থিতিতে চালের মূল্য নির্ধারণের ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই সভা শেষ হয়।  তবে সভার শেষে জেলা প্রশাসক মোঃ এহেতেশাম হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন- এক দুজনের মধ্যেই খাজানগর  মোকামে ধান এবং চালের মজুদ পরীক্ষা করে দেখতে অভিযান চালানো হবে। এ সময় কোন মিল মালিকের বিরুদ্ধে মজুদ আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। মতবিনিয় সভায় উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রকিব, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শারমিন আক্তারসহ সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও জেলার চালকল মালিকবৃন্দ।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো খবর
© All rights reserved ©2021  Daily Andoloner Bazar
Site Customized By NewsTech.Com