1. admin@andolonerbazar.com : : admin admin
  2. andolonerbazar@gmail.com : AndolonerBazar :

কুষ্টিয়ায় অযত্মে-অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে ‘স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা’

  • সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

 

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মরণে নির্মিত দৃষ্টিনন্দন ‘স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা’ ভাস্কর্য চত্বর অযতেœ ও অবহেলায় নষ্ট হতে চলেছে। শহরের এনএস রোডের পাশে ও পৌর বাজারের সামনে বাঙালির গৌরবজ্জ্বল সংগ্রামের ইতিহাসকে ধারণ করে নির্মিত ভাস্কর্যটি সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয়রা। মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয়রা জানান, স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা ভাস্কর্যটি দীর্ঘদিন ধরে অবহেলায় ও অযতেœ পড়ে আছে। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে ধারণ করে নির্মিত ভাস্কর্যটি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ভাস্কর্যগুলোর রং নষ্ট হয়ে গেছে, অনেক জায়গায় ফেটে ও ভেঙে গেছে। তবে এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের কোনো মাথাব্যথা নেই। এটিকে যেভাবে সম্মান দেওয়ার কথা সেভাবে দেওয়া হচ্ছে না। এর সবদিকে বেষ্টনি দেওয়া দরকার। দ্রুত রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন তারা। এ বিষয়ে কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার রফিকুল আলম টুকু বলেন, অযতেœ অবহেলায় ‘স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা’ মঞ্চটির পরিবেশ নোংরা অস্বস্তিকর। ওটা দেখভাল করার কেউ নেই। এটা খুবই দুঃখজনক। শহরের মাঝখানে কুষ্টিয়া পৌরসভা স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা মঞ্চটি তৈরি করেছে। কিন্তু রক্ষণাবেক্ষণ করে না কেউ। তিনি আরও বলেন, ঠিকমতো রক্ষণাবেক্ষণ না করার জন্য সেখানে ময়লা আবর্জনার স্তূপ হয়েছে। সেখানে প্রতিদিন বিভিন্ন জিনিসের দোকান বসে। পরিবেশটা খুবই নোংরা। মঞ্চটাকে যদি রাখতে হয়, নামের মূল্যায়ন যদি করতে হয়, তাহলে রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে। তা না হলে মঞ্চটার নামকরণটি উঠিয়ে অন্যত্র করা হোক। যেখানে এটার মর্যাদা দেওয়া যায়। কুষ্টিয়ায় অযতেœ-অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে ‘স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা’ সরেজমিনে দেখা যায়, কুষ্টিয়া পৌর বাজারের সামনে ও এনএস রোডের পাশে ১৯৭২ সালে নির্মিত ‘স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা’ ভাস্কর্যটি অযতেœ অবহেলায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। বড় লম্বা দেওয়ালে সুনিপুণ কারিগরি দক্ষতায় মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামের প্রেক্ষাপট তুলে ধরা হয়। রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কারের অভাবে ভাস্কর্যের চুনকাম ও পলেস্তারা উঠে গিয়ে জরাজীর্ণ অবস্থা। অনেক স্থান ভেঙে ও ফেটে গেছে। ভাস্কর্যটির বেষ্টনি না থাকায় সেখানে সাইকেল, ভ্যান, রিকশা পার্কিং করা হয়। অস্থায়ী দোকান বসানো হয়েছে। অনেকে জুতা-স্যান্ডেল পরেই এটির ওপর দিয়ে হাঁটাচলা করছেন। ‘স্বাধীকার থেকে স্বাধীনতা’ চত্বরের চারপাশে ময়লা-আবর্জনা ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে। পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম বলেন, ‘স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা’ ভাস্কর্যটির অবস্থা আরও খারাপ ছিল। কুষ্টিয়া পৌরসভা সেটি রক্ষণাবেক্ষণের মাধ্যমে অবস্থার উন্নয়ন ঘটিয়েছে। যেখানে ভাস্কর্যটি আছে, সেখানে একটি সুপার শপ নির্মাণ করবে পৌরসভা। এজন্য ভাস্কর্যটি সংস্কার করা হচ্ছে না। সুপার সপ নির্মাণের কাজ শুরু হবে। সেই সুপার শপে অনুরুপ একটি ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে। ১৯৭২ সালে তৎকালীন কুষ্টিয়া পৌরসভার প্রশাসক ম. ম. রেজার উদ্যোগে ও নাগরিক কমিটির সহযোগিতায় ভাস্কর্যটি নির্মিত হয়। যাদের সহযোগিতা ও উদ্যোগে ‘স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা’ চত্বরটি নির্মিত হয়। যেখানে স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা চত্বরটি অবস্থিত সেখানে ১৯৭১ সালে পাক বাহিনী শক্তিশালী বোমা নিক্ষেপ করে। এতে সিরাজউদ্দৌলা সড়কসহ মিউনিসিপ্যাল মার্কেটের ব্যাপক ক্ষতি হয়। সেই সময় কুষ্টিয়া পৌরসভার প্রশাসক ম. ম. রেজা সাহেবের উদ্যোগে এবং তৎকালীন নাগরিক কমিটির সহযোগিতায় পরবর্তী প্রজন্মের কাছে স্বাধীনতার ইতিহাস তুলে ধরার নিমিত্তে এই চত্বরটি নির্মাণ করা হয়। ‘স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা’ ভাস্কর্যটিতে স্বাধীনতার ইতিহাসের বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামের প্রেক্ষাপট তুলে ধরা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো খবর
© All rights reserved ©2021  Daily Andoloner Bazar
Site Customized By NewsTech.Com