1. andolonerbazar@gmail.com : AndolonerBazar :
বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:৩৭ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়ায় চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের পথের কাটা হতে পারে জাসদ

  • সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৩৭ মোট ভিউ

 

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ আগামী ১৭ অক্টোবর কুষ্টিয়াসহ দেশের ৬১টি জেলা পরিষদের ভোট অনুষ্ঠিত হবে। গত ২৩ আগষ্ট এ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। জেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনার পর নড়েচড়ে বসেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। জেলার গুরুত্বপূর্ণ সরকারি এ প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পেতে তৎপরতা চালাচ্ছেন দলটির সিনিয়র বেশ কয়েকজন নেতা। পাশাপাশি আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে লড়তে প্রস্তুতি নিচ্ছেন মহাজোটের অন্যতম প্রধান শরিক দল জাসদের শীর্ষ একজন নেতা। তিনি সর্বশেষ নির্বাচনে প্রার্থী হলে মামলার কারনে শেষ পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে পারেননি। তবে এবার আটঘাট বেঁধে মাঠে নামার ঘোষণা দিয়েছেন। বিশেষ করে মিরপুর ও ভেড়ামারা উপজেলায় জাসদের দলীয় ভোট রয়েছে। জয়ী হওয়ার মত ভোট না থাকলেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় জয় পাওয়া কঠিন হতে পারে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থীর। আ’লীগের প্রার্থীকে ঠেকাতে জোরোসোরে মাঠে নামছে জাসদের প্রার্থী। জেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন পৌরসভা, উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের ভোটে। জেলার ৬টি উপজেলা, ৫টি পৌরসভা ও ৬৩টি ইউনিয়নের বেশির ভাগে আওয়ামী লীগের জনপ্রতিনিধিরা থাকায় জয় পাওয়া সহজ হবে বলে মনে করছেন চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতারা। এ কারনে তারা হাল না ছেড়ে দৌড়াচ্ছেন কেন্দ্রীয় নেতাদের পেছনে। অনেকেই আবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নানাভাবে ম্যানেজের চেষ্টা করছেন। কদর বাড়ছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনার পর দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত করতে জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র বেশ কয়েকজন নেতা এখন তৎপর। দলীয় মনোনয়ন পেলে জয় পাওয়া অনেকটা সহজ হওয়ায় এখন নেতারা ছুটছেন ঢাকায়। বিশেষ করে দলীয় সভানেত্রীসহ শীর্ষ নেতাদের সাথে যোগাযোগ বাড়িয়েছেন তারা। জেলা পরিষদের বর্তমান প্রশাসক বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী রবিউল ইসলাম সর্বশেষ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পান। তিনি চেয়ারম্যান হয়ে আসার পর জেলা পরিষদে শৃংখলা ফিরিয়ে আনাসহ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করেছেন। এছাড়া জেলা পরিষদের অর্থায়নে শহর ও গ্রামে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এসব কারনে দল তাকে ফের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দেবেন বলে মনে করেন ওই নেতা ও তার অনুসারীরা। তার মেয়াদ পার হওয়ার পর তাকেই প্রশাসক পদে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। সামনে নির্বাচনে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য তিনি জোর চেষ্টা করছেন। তবে দুই দফায় তাকে মনোনয়ন দেওয়ায় এবার তার ভাগ্যে ছিঁকে ছিঁড়তে নাও পারে বলে দলীয় নেতা-কর্মিরা মনে করছেন। এবার বঞ্চিত সিনিয়র কোন নেতাকে এ পদের জন্য খূঁজে নেওয়া হতে পারে বলে মনে করছেন দলীয় নেতারা। এ বিষয়ে হাজী রবিউল ইসলাম বলেন, ‘জেলা পরিষদে আসার পর ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। দল বিশেষ করে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দুইবার সুযোগ দিয়েছে। আগামীতে সুযোগ দিলে মানুষের জন্য কাজ করে যাব।’ কুষ্টিয়া আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মিরা বলেন, সেক্ষেত্রে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলীর নাম সব থেকে বেশি আলোচিত হচ্ছে দলীয় ফোরামে। জেলা আওয়ামীলীগের এ নেতা বিভিন্ন সময় বিশেষ করে বিরোধী বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় থাকাকালীন সময় আন্দোলনে রাজপথে ভূমিকা রাখেন। দীর্ঘ সময় দল করলেও তাকে এখন পর্যন্ত কোন প্রতিষ্ঠানে দেখা যায়নি। এর আগে জেলা পরিষদ ও পৌর নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করলেও তাকে দেওয়া হয়নি। এবার দল তাকে মূল্যায়ন করবে বলে মনে করছেন নেতারা। নির্বাচনের বিষয়ে কথা বলে আজগর আলী বলেন, ‘জেলা পরিষদ নির্বাচনের লড়ার আগ্রহ রয়েছে। আমাদের দলের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি দলের ক্ষুদ্র এই কর্মিকে কোন দায়িত্ব দেয় তাহলে তা মাথা পেতে নেব। মানুষের জন্য এখনো কাজ করে যাচ্ছি, আগামীতেও কাজ করে যাব ইনশাআল্লাহ।’  হাজী রবিউল ইসলামের আগে এ সরকার ক্ষসতায় আসার পর প্রথম প্রশাসক পদে নিয়োগ দেয় মুক্তিযুদ্ধকালিন কমান্ডার জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা জাহিদ হোসেন জাফরকে। জাহিদ হোসেন জাফর পেশায় শিক্ষক। তিনি সাদামাটা জীবন যাপন করেন এখনো। বঙ্গবন্ধু হত্যার পর প্রথম প্রতিবাদ করে গ্রেফতার হয়ে জেলে যাওয়া এই নেতা এবার দলীয় মনোয়ন চাবেন বলে জানা গেছে। তিনি মাঠে ময়দানে থেকে দলকে এখনো নেতৃত্ব দিচ্ছেন। জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহিদ হোসেন জাফর বলেন,‘ ৫ বছর জেলা পরিষদে ছিলাম। জানামতে কোন অনিয়ম ও দুর্নীতি করে আসিনি। মানুষের সেবা করার জন্য রাজনীতি করে আসছি। এবার দল থেকে মনোনয়ন চেয়েছি। আশা করছি নেত্রী আমাকে ফেরাবে না।’  এদিকে জেলা পরিষদ নির্বাচনে আলোচনায় আছে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খানের নামও। তিনিও ভেতরে ভেতরে নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পেতে জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন বলে একাধিক সূত্র জানিয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ছাড়াও খোকসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তিনি। চেয়ারম্যান আছেন টানা কয়েকবার। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় এ নেতাও নির্যাতিত হন ভাবে। নির্বাচনের বিষয়ে সদর খান বলেন, ‘দল চাইলে জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার আগ্রহ আছে। চেয়ারম্যান মনোনয়নের বিষয়টি আমাদের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে। তিনি চাইলে নির্বাচন করতে রাজী আছি।’ এছাড়াও কুষ্টিয়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকায় রয়েছেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ডাঃ আমিনুল হক রতন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক প্রকৌশলী ফারুক-উজ-জামান ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক হাবিবুল হক পুলক। ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দলীয় মনোনয়ন কেনা যাবে। এ কারণে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকা আরো বাড়তে পারে বলে মনে করছেন নেতা-কর্মীরা। এদিকে আওয়ামী লীগের বাইরে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ ইনু) কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি গোলাম মহসিন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে লড়বেন বলে জানা গেছে। তিনি সর্বশেষ নির্বাচনে প্রার্থী ছিলেন। তবে ঠিকাদারি সংক্রান্ত কাজের ঝামেলায় আদালতে মামলা হয়। উচ্চাদালত পর্যন্ত গড়ায় এ মামলা। এ কারনে কুষ্টিয়ার নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। পরে আদালত তার প্রার্থীতা বাতিল করে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীয়তায় জয়ী হয় আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাজী রবিউল ইসলাম।  সর্বশেষ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভেড়ামারা, মিরপুরসহ অন্য উপজেলা কয়েকটি ইউনিয়নের জাসদ সমর্থিত প্রার্থীরা জয়ী হয়। পাশাপাশি আওয়ামী লীগের ভেতর গ্র“পিং থাকায় তার ভোট পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ কারনে তিনি নির্বাচনে লড়তে প্রস্তুতি নিচ্ছেন এবারো। জাসদের সাথে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক গ্র“পিং থাকায় নির্বাচনের মাঠে এর প্রভাব পড়ার শঙ্কা রয়েছে বলে মনে করছেন দুই দলের নেতা-কর্মিরা।  নির্বাচনের বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা জাসদ সভাপতি গোলাম মহসিন বলেন,‘ গতবার নানা ষড়যন্ত্রের কারনে নির্বাচন করতে পারেনি। এবার নির্বাচনের মাঠে নামার প্রস্তুতি গ্রহণ করছি। চেয়ারম্যান পদে লড়ার ইচ্ছা আছে। সেইভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আওয়ামী লীগের প্রার্থী যেই হোক তার বিরুদ্ধে ভোটে লড়ব।’

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর
© All rights reserved ©2021  Daily Andoloner Bazar
Theme Customized By Uttoron Host
You cannot copy content of this page