1. andolonerbazar@gmail.com : AndolonerBazar :
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৫:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আশঙ্কাজনক হারে করোনা সংক্রমণ বাড়লেও সেবার জন্য প্রস্তুত নয় হাসপাতালগুলো করোনায় ৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৮৯৭ চন্দ্রিমা ব্যাডমিন্টন ক্লাবের সভাপতি জাকির, সম্পাদক মুন্সী তরিকুল বুয়েটে ভর্তির সুযোগ পেয়ে কোথায় পড়বে জানেনা আবরার ফাহাদের ছোট ভাই কুষ্টিয়ায় প্রতিমা বিসর্জনের সময় পানিতে ডুবে যুবকের মৃত্যু রথে চাঁদার টাকা না দেয়ায় দোকান ভাংচুর ও উচ্ছেদ বিচ্ছু বাহিনীর দৌলতপুরে পদ্মা নদী থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার পোড়াদহে খুলনা রেলওয়ে জেলার ২য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা মহানবী (সঃ) ও তার সহধর্মীনিকে কুটক্তি করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ রোটারি ক্লাব অব কুষ্টিয়া সেন্ট্রালের সভাপতির দায়িত্বভার নিলেন প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম

পুদিনা পাতার বিস্ময়কর উপকারিতা

  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ৯ এপ্রিল, ২০২২
  • ৮৬ মোট ভিউ

কৃষি প্রতিবেদক ॥ পুদিনা পাতা সবার কাছেই পরিচিত। পুদিনা একটি সাধারণ আগাছা ধরনের গাছ। কান্ড ও পাতা বেশ নরম। পাতার রঙ সবুজ। ছোট গুল্ম জাতীয় এই গাছের পাতা ডিম্বাকার, পাতার কিনারা খাঁজকাটা ও সুগন্ধীযুক্ত হয়। পাতা কিছুটা রোমশ ও মিন্টের তীব্র গন্ধযুক্ত। পুদিনা পাতার মূল, পাতা, কান্ডসহ পুরো গাছই ওষধিগুনে পরিপূর্ণ। বিশ্বের অনেক দেশেই পুদিনার গাছ জন্মে। এর পাতা সুগন্ধি হিসেবে রান্নায় ব্যবহার করা হয়।
মুখরোচক কাবাব, সালাদ, বোরহানি ও চাটনি তৈরিতে ব্যবহার হয়। কাঁচা পুদিনা সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হয় চাটনি ও সালাদে। ইদানীং বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে টক দই এবং বোরহানি তৈরির জন্য পুদিনার ব্যবহার বাড়ছে। এছাড়া মাছ, মাংস, সস, স্যুপ, স্টু, চা, তামাক, শরবত তৈরিতে পুদিনা পাতা ব্যবহার হয়।
ইউরোপের দেশগুলোতে ভেড়ার মাংসের রোস্ট ও মিন্ট জেলি তৈরিতে পুদিনা পাতা ব্যবহার হয়। বিভিন্ন দেশে পুদিনার বেশি ব্যবহার হচ্ছে তেল তৈরিতে। পুদিনার গাছ থেকে পাওয়া এ তেলের নাম পিপারমেন্ট অয়েল। এ তেল বেশ মূল্যবান। বিভিন্ন শিল্প বিশেষ করে ওষুধ, টুথপেস্ট, মিন্ট চকোলেট, ক্যান্ডি, চুইয়িংগাম ও প্রক্রিয়াজাত খাদ্য এসবে এটি ব্যবহার হয়।
গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূর করেন ও পুদিনা পাতা বেশ ভালো কাজ করে। কোনো কারণে পেটে গ্যাস জমে গেলে পুদিনা পাতার ব্যবহার কার্যকরি ভূমিকা পালন করতে পারে দুই চামচ পুদিনার রস সামান্য লবণ ও লেবুর রসের সঙ্গে হালকা পানির সঙ্গে মিশিয়ে খেলে পেটে বদহজম বা গ্যাসের সমস্যা একেবারে দূর হয়। এছাড়া পুদিনার অ্যান্টিবায়োটিক উপাদান ত্বকের যে কোনো রকম সংক্রমণ ঠেকাতে ভূমিকা রাখতে পারে। এই উপকারগুলো ছাড়াও হার্টের অসুখ দূর করতে পুদিনা পাতা অনেক উপকারী এটি রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে রাখতে সহায়তা করে। নানামুখী উপকারী ব্যবহারের এই পুদিনা পাতা ত্বককে শীতল করে এটি মাথার চুলে উকুন থাকলে উকুন মেরে ফেলতেও কাজ করে। মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে পুদিনা পাতা কাজ করে।
পুদিনা পাতার রস তাৎক্ষণিক ব্যথানাশক উপাদান হিসেবে কাজ করে। পুদিনা পাতার রস চামড়ার ভেতর দিয়ে নার্ভে পৌঁছে নার্ভ শান্ত করতে সহায়তা করে। তাই মাথা ব্যথা বা জয়েন্টে ব্যথা উপশমে পুদিনা পাতা ব্যবহার করা যায়। মাথা ব্যথা হলে পুদিনা পাতার চা পান করতে পারেন। অথবা তাজা কিছু পুদিনা পাতা চিবিয়ে খেতে পারেন। জয়েন্টে ব্যথায় পুদিনা পাতা বেটে প্রলেপ দিতে পারেন। পুদিনা পাতার চা শরীরের ব্যথা দূর করতে খুবই উপকারি। মাইগ্রেনের ব্যথা দূর করতে নাকের কাছে টাটকা পুদিনা পাতা ধরুন। এর গন্ধ মাথাব্যথা সারাতে খুবই উপকারি। অনবরত হেচকি উঠলে পুদিনা পাতার সঙ্গে গোলমরিচ পিষে ছেকে রসটুকু পান করুন। কিছুক্ষণের মধ্যেই হেচকি বন্ধ হয়ে যাবে। গোলাপ, পুদিনা, আমলা, বাঁধাকপি ও শসার নির্যাস একসঙ্গে মিশিয়ে টোনার তৈরি করে মুখে লাগালে তা ত্বককে মসৃণ করে তোলে।
পুদিনা পাতায় রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফাইটোনিউট্রিয়েন্টসের চমৎকারী গুণাগুণ- যা পেটের যে কোনো সমস্যার সমাধান করতে পারে খুব দ্রুত। যারা হজমের সমস্যা এবং পেটের ব্যথা কিংবা পেটের অন্যান্য সমস্যায় ভুগে থাকেন তারা খাবার পর এককাপ পুদিনা পাতার চা খাওয়ার অভ্যাস করুন। ৬/৭টি তাজা পুদিনা পাতা গরম জলে ফুটিয়ে মধু মিশিয়ে খুব সহজে পুদিনা পাতার চা তৈরি করতে পারেন ঘরে। দীর্ঘদিন রোগে ভুগলে বা কোষ্ঠ্যকাঠিন্য থাকলে অনেক সময় অরুচি হয়। এক্ষেত্রে পুদিনা পাতার রস ২ চা চামচ, কাগজি লেবুর রস ৮-১০ ফোটা, লবণ হালকা গরম জলে মিশিয়ে সকাল-বিকাল ২ বেলা খান। এভাবে ৪-৫ দিন খেলে অরুচি দূর হয়ে যাবে। কফ দূর করতে পুদিনা পাতার রস, তুলসী পাতার রস, আদার রস ও মধু একসঙ্গে মিশিয়ে খান। পুরানো কফ দূর করতেও এই মিশ্রণ অতুলনীয়। পুদিনা পাতার রস উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। নিয়মিত পুদিনা পাতার রস খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। মেয়েদের অনিয়মিত পিরিয়ডের যন্ত্রণা থেকে সেরে ওঠার জন্য পুদিনা পাতা বেশ উপকারী। পুদিনা ত্বককে শীতল করে। খাবারের সঙ্গে নিয়মিত খেলে শরীরের ত্বক সতেজ হয়, সজীবভাব বজায় থাকে। মৃত কোষকে দূর করে মৃসণ করে তোলে ত্বক।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর
© All rights reserved ©2021  Daily Andoloner Bazar
Theme Customized By Uttoron Host
You cannot copy content of this page